মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C

এমামবাড়ী ও মাজারশরিফ

 

হযরত মাওলানা শাহ্মুন্সী গোলামআলী সাহেবের সুযোগ্য পুত্র হযরত মাওলানা শাহ্ আব্দুর রহমান(রাঃ) বাংলা ১২০১ সনে, ঢাকা জেলার মানিকগঞ্জ থানা ধীনগড়পাড়া আলীনগর গ্রামে, শরীফ খানদানে জন্মগ্রহণ করেন৤ তিনি বাল্য কাল হইতে তাঁহার চাচা মুফতি খানবাহাদুর এরাদতআলী, যিনি তৎকালীন বৃটিশ ভারতের যুক্ত ভারতের যুক্তবাংলার প্রথম মুসলিম জেলাজজ ছিলেন৤ তাঁহার সঙ্গে দীর্ঘকাল ভারতবর্ষের বিহারপ্রদেশের ভাগলপুর,ছাপরা,আরা,বাকীপুর,মুজাফ্ফরপুরেআরবী,ফার্সীও ইংরেজীভাষা অধ্যায়ন শেষেমুজাফ্ফরপুরে প্রায় ৫০বৎসর বয়স পর্যন্ত বৃটিশ সরকারের অধীনে উচ্চপদে চাকুরীরত থাকেন৤ দীর্ঘদিন উক্ত কামেলপীরের খেদমতে থাকিয়া এলমেশরীয়ত ,ত্বরিকত, হাকিকত ও মারেফাততত্ত্ বহাসিলকরতঃ রুহানীফয়েজ হাসিলকরিয়া পূর্ণ নেয়ামত ও খেলাফত প্রাপ্তহন৤ তাঁহার পীর কেবলা সন্তষ্ট হইয়া ধর্ম-পরায়না নিজ কন্যাকে তাঁহার সহিত বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ করেন৤ কিছুদিন অতিবাহিত হওয়ার পর পীর সাহেব তাঁহাকে এলমেতাসাউফ এর ম্যাধ্যমে দ্বীন ইসলাম ও পাক পাঞ্জাতনের সুমহান আদর্শ ব্যাপকভাবে প্রচারের জন্য পূর্ব বাংলায় নিজ গ্রামে প্রত্যাবর্তনে র্আদেশদেন৤ পবিত্র মহররম পর্বসহ অন্যান্য ধর্মীয় অনুষ্ঠানাদি বাংলামুল্লুকে যথাযোগ্য মর্যাদায় উদযাপনের কোন ব্যবস্থাই ছিলনা৤ তখন  হযরত শাহ্আব্দুররহমান ও রফেলালমিয়াসাহেব বলেন, তিনি বাংলাদেশে আসিয়া এলমেতাসাউফের মাধ্যমে দ্বীন  ইসলাম প্রচার ও পবিত্র মহররম পর্ব শানশওকতের সহিত উদযাপন করিবেন৤ গড়পাড়া ইউঃএর অন্তগত শাকরাইল গ্রামের ডিপুটিবাড়িতে  বাহাছের  আয়োজন করা হয়। উক্ত বাহাছে হযরত শাহ্ আব্দুররহমান(রাঃ) কোরআন ও হাদিস মোতাবেক প্রমানসহ তাঁহার প্রচারিতত্বরিকার পক্ষে‍ যুক্তিস্থাপন করেন। আলেমগণ তাহা মানিয়ানিতে বাধ্য হয়। উপরোক্ত ঘটনায় হযরত মাওলানা শাহ্আব্দুররহমান(রঃ) একজন কামেল ও বুজুর্গওলী হিসাবে চতুর্দিকে তাহার যশবিস্তারলাভকরে। দুরদুরান্ত  ।তিনি আরবী ও ফার্সীভাষায় বহুগ্রন্থরচনা করেন। বাংলার সরল প্রাণ মানুষের মধ্যে এলমে তাসাউফের মাধ্যমে সঠিক পথ প্রাপ্তির জন্য‘‘শরফুলইনসান’’ বা‘‘খোদাপ্রাপ্তি’’ সোপাননামক একটি অমূল্য ধর্মীয়গ্রন্থ রচনা করেন। যাহা পরবর্তীতে তাঁহার সুযোগ্য প্রথম পুত্র খান সাহেব মৌলভী হামিদুরর হমান(ডেপুটিম্যাজিষ্ট্রেটওকালেক্টর) সাহেব কর্তৃক পুস্তক খানা সংকলিত হয়। বাংলাদেশের বিশিষ্ট ইসলামী চিন্তাবীদপীর–এ-কামেল হযরত মাহলানা শাহ্আব্দুররহমান আল-কাদরী আল-চিস্তী, ওয়ালআবুলওয়ালাই(রঃ) বাংলা ১৩০০ শনের ২৭শেকার্তিক সোমবার এশার নামাজের পর মানব লিলাসম্বরন করিয়াই হজ গতত্যাগ করেন(ইল্লা……….রাজেউন) তাঁহার দাফনকায ৮শে কার্তিক তারিখে যথাযোগ্য

  মর্যাদায় সম্পন্ন করা হয়। তাঁহার পর হইতে প্রতিবৎসর ২৮শে কার্তিক তারিখে শানশওকতের সহিত বাৎসরিক ওরসশরীফ উদযাপিতহয়।